ক. ভর্তি ১। উচ্চ মাধ্যমিক শ্রেণীতে ভর্তির জন্য কলেজ নির্ধারিত ফরম পূরণ করে মাধ্যমিক পরীক্ষার প্রশংসা পত্র, নম্বর পত্র, প্রবেশ পত্র, রেজিষ্ট্রেশন কার্ড ইত্যাদির ফটোকপি ও মার্কশীটের মূলকপিসহ সদ্য তোলা পাসপোর্ট সাইজের ৪ কপি এবং স্ট্যাম্প সাইজের ২ কপি ছবি ভর্তি ফরমের সাথে জমা দিতে হবে।

২। স্নাতক শ্রেণীতে ভর্তির জন্য কলেজ নির্ধারিত ফরম পূরণ করে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার প্রশংসা পত্র, নম্বর পত্র, প্রবেশ পত্র, রেজিষ্ট্রেশন কার্ড ইত্যাদির ফটোকপি ও মার্কশীটের মূলকপিসহ সদ্য তোলা পাসপোর্ট সাইজের ৪ কপি এবং স্ট্যাম্প সাইজের ২ কপি ছবি ভর্তি ফরমের সাথে জমা দিতে হবে এবং অনলাইনে নাম এন্ট্রি করতে হবে। ৩। অনার্সে ভর্তির ক্ষেত্রে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিধি মোতাবেক প্রত্যেক বিষয়ের বিভাগীয প্রধানদের সাথে যোগাযোগ করে যথাসময়ে অনলাইনে ফরম পূরণ করতে হবে। ৪। ভর্তির সময় রেজিষ্ট্রেশন ফরম কলেজ অফিস থেকে গ্রহণ করে যথাযথ ভাবে পুরণ করে জমা দিতে হবে। ভর্তির পর ছাত্র-ছাত্রীরা অফিস থেকে নিজ নিজ পরিচয় পত্র সংগ্রহ করবে। কলেজ সংক্রান্ত যাবতীয় কাজে এটি প্রদর্শন করতে হয় বিধায় কার্ডটি সযতেœ সংরক্ষণ করতে হবে। ৫। ভর্তির সময় কলেজ অফিসে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের নিকট নির্ধারিত হারে টাকা জমা দিতে হবে। কারো সাথে ব্যক্তিগত কোন লেনদেন না করার জন্য ছাত্র-ছাত্রী ও অভিভাবকদের পরামর্শ দেয়া হচ্ছে। ৬। ভর্তির টাকা পরিশোধের পর বোর্ডে মূল নম্বর পত্র জমা দিতে হবে। এখানে উল্লেখ্য যে, সেশন শেষ না হওয়া পর্যন্ত বোর্ড কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া কোন ভাবে নম্বর পত্র ফেরত নেয়া যাবে না। ৭। মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শ্রেণীর ছাত্র-ছাত্রীকে বোর্ড এবংস্নাতক শ্রেণীর ছাত্র-ছাত্রীকে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃক অনুমতি ছাড়া ছাড়পত্র দেয়া বা ভর্তি করা যায় না। খ. পরীক্ষা ও প্রমোশন ১। উচ্চ মাধ্যমিক ও স্নাতক শ্রেণীর ১ম বর্ষের ছাত্র-ছাত্রীদের ২য় বর্ষে প্রমোশনের জন্য নির্ধারিত পরীক্ষা সমূহে অংশগ্রহণ করতে হবে। যথাযথভাবে পরীক্ষাসমূহে অংশগ্রহণ না করলে বা অংশগ্রহণ করে নিয়মানুযায়ী উত্তীর্ণ না হলে প্রমোশন সম্পর্কে বিবেচনা করা যাবে না। ২। উচ্চ মাধ্যমিক ও স্নাতক শ্রেণীর ছাত্র-ছাত্রীদের নির্দিষ্ট নিয়মানুযায়ী টিউটোরিয়াল পরীক্ষায় অংশগ্রহণ বাধ্যতামূলক। ৩। কলেজের বার্ষিক/নির্বাচনী পরীক্ষাসহ বোর্ড জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য যোগ্য বিবেচিত হতে হলে প্রত্যেক ছাত্র-ছাত্রীকে ক্লাসে অবশ্যই কমপক্ষে ৭০% উপস্থিত থাকতে হবে। ৪। উচ্চ মাধ্যমিক শ্রেণীর একজন শিক্ষার্থী একই রেজিষ্ট্রেশনে পর পর ৪ বছর, স্নাতক (পাস) শ্রেণীতে পর পর ৩ বছর এবং স্নাতক (সম্মান) শ্রেণীতে পর পর ৪ বছর পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে। ৫। প্রমোশনসহ পরীক্ষা সংক্রান্ত যে কোন সমস্যা সমাধানের লক্ষ্যে কেবল পিতা/মাতাকেই (জীবিত থাকলে) প্রকৃত অভিভাবক হিসাবে বিবেচনা করা হবে। ৬। প্রতিটি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশের পরে ছাত্র-ছাত্রীদের নিকট পাঠোন্নতিপত্র প্রদান করা হয়। অভিভাবকগন পাঠোন্নতি প্রতিবেদন সতর্কতার সাথে পর্যবেক্ষণ করে স্বাক্ষর দান করবেন এবং পুনরায় ছাত্র-ছাত্রীর মাধ্যমে সংশিষ্ট শিক্ষকের নিকট ৭ (সাত) দিনের মধ্যে ফেরত পাঠাবেন। ৭। ছাত্র-ছাত্রীদের শ্কিষা জীবনের সাফল্য যেমন তাদের পিতা মাতার কাম্য, তেমনি এই প্রতিষ্ঠান ও এর ছাত্র-ছাত্রীদের সাফল্যে গর্বিত। গ. বেতন পরিশোধ ১। প্রত্যেক ছাত্র-ছাত্রীকে মাসিক বেতন প্রতি মাসের ১৫ তারিখের মধ্যে পরিশোধ করতে হবে। সঠিক সময়ে পরিশোধে ব্যর্থ হলে ১০ টাকা জরিমানাসহ বেতন দিতে হবে। ২। তিন মাসের বেতন বকেয়া পড়লে ছাত্র-ছাত্রীর নাম রেষ্টিার থেকে কেটে দেয়া হয়। এ ধরনের নাম কাটা যাওয়া ছাত্র-ছাত্রীর পুনঃভর্তি কর্তৃপক্ষের বিবেচনা সাপেক্ষ। পুনঃ ভর্তি ফি এক মাসের বেতনের সমান। ঘ. কলেজ বৃত্তি ও পুরস্কার ১। মেধাবী ও দরিদ্র ছাত্র-ছাত্রীদের কলেজ বৃত্তি হিসাবে অর্ধবেতনে ও বিনা বেতনে পড়ার সুযোগ দেয়া হয়। ২। বোর্ড ও জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃতিত্বপূর্ণ ফলাফলের জন্য পুরস্কার দেয়া হয়। ঙ. পোশাক, শৃঙ্খলা ও আচরণ ১। উচ্চ মাধ্যমিক ছাত্রদের জন্য সাদা হাফ শার্ট নেভি ব্লু প্যান্ট ও কালো সু এবং ছাত্রীদের জন্য সাদা সালোয়ার সাদা কামিজ সাদা ওড়না ও কালো সু পড়া বাধ্যতামূলক। ২। ক্লাস চলাকালীন সময়ে শ্রেণী কক্ষের বারান্দায় ঘোরাফেরা ও গোলযোগ সৃষ্টি করা কঠোরভাবে নিষিদ্ধ। প্রতিটি ছাত্র-ছাত্রীর ভদ্র, শালীন ও শিক্ষার্থীসূলভ আচরণ একান্ত বাঞ্চনীয়। ক্লাশে যথাসময়ে উপস্থিত, লাইব্রেরী ও ল্যাবরেটরীতে শিক্ষা সংক্রান্ত কাজে মনোযোগ, নীরবতা, পরিচ্ছন্নতা ও সৃঙ্খলা একান্তভাবে কাম্য। ৩। অবসর সময়ে ছাত্ররা গ্রন্থগার, ছাত্রীরা কমনরুমে অবস্থান করবে। ৪। সামগ্রিকভাবে কলেজের শৃঙ্খলার পরিপন্থী আচরণের জন্য কঠোর শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়। চ. শিক্ষা সহায়ক কার্যক্রম ১। অত্র কলেজে বার্ষিক মিলাদ, ক্রীড়া, বনভোজন, নবীন বরণ, বিদায় সংবর্ধনা, কৃতি ছাত্র-ছাত্রীদের সংবর্ধনা, আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস, স্বাধীনতা দিবস, বিজয় দিবস, ওয়াল ম্যাগাজিন প্রকাশ, শিক্ষা সফরসহ যাবতীয় সাংস্কৃতিক কার্যক্রম পরিচালনার জন্য রয়েছে সাংস্কৃতিক পরিষদ। ২। কলেজের ছাত্র-ছাত্রীদের খেলাধুলার জন্য রয়েছে প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম যা শরীর চর্চা শিক্ষকের তত্ত্বাবধানে পরিচালনা করা হয়। এছাড়া ও স্কাউটিং এর সুবিধা রয়েছে। ছ. গ্রন্থাগার ১। ছাত্র-ছাত্রীরা কলেজ গ্রন্থগারে প্রয়োজন মত পড়াশোনা করতে পারে। অত্র কলেজের গ্রন্থগারে পর্যাপ্ত সংখ্যক পাঠ্যবই ও রেফারেন্স বই রয়েছে। ২। গ্রন্থাগারে নীরবতা বজায় রেখে নিজে পড়াশোনায় মনোযোগ দান ও অন্যকে পড়াশোনার সুযোগ দেয়া প্রত্যেক শিক্ষার্থীর কর্তব্য। গ্রন্থাগারে বসে অযথা গল্পগুজব করা কঠোর ভাবে নিষিদ্ধ। ৩। সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত গ্রন্থাগার খোলা থাকে। বই পড়া ও নেয়ার ব্যপারে প্রচলিত নিয়ম কানুন ছাত্র-ছাত্রীদের মেনে চলতে হবে। জ. ব্যক্তিগত ফাইল কলেজ অফিস প্রত্যেক ছাত্র-ছাত্রীর ব্যক্তিগত ফাইলে তার নাম, ঠিকানা, পাঠ্য বিষয়, ফলাফল, জন্ম তারিখ, ভর্তির তারিখ, আচরণ সংক্রান্ত রিপোর্ট ইত্যাদি সংরক্ষণ করা হয়। ঠিকানা ও ফোন নম্বর পরিবর্তন হলে সাথে সাথে অফিসে লিখিতভাবে জানানো আবশ্যক।